সকালের যে অভ্যেস এখনই ছাড়া উচিত

ওয়েব ডেস্ক, প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭

কথায় আছে সকালে ঘুম থেকে তাড়াতাড়ি ওঠা মানে ভালভাবে যায় গোটা দিন। কেননা সকাল ভাল গেলে সারা দিনটার জন্য আর চিন্তা করতে হয় না।তবে দিন দিন কাজের চাপ বাড়ার ফলে নিজের প্রতি ঠিকমতো সময় দেওয়া আর হয়ে ওঠে না। সকালে বেশ কিছু বদ অভ্যাস আমাদের সারাদিনে পিছিয়ে দেয়। দেখা নেওয়া যাক সেইসব কারণগুলি—
অ্যার্লাম পিছিয়ে দেওয়া নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমিয়ে নির্দিষ্ট সময়ে ওঠাটাই সাধারণ নিয়ম তবে নানান কাজের চাপের কারণে সেই নিয়ম মেনে চলা সম্ভব হয়ে ওঠেনা। যার জেরে সকালে ঘুম থেকে ওঠার ক্ষেত্রে অ্যার্লাম বাজলেও সেটাকে বন্ধ করে ঘুমানোর প্রবণতা অনেককেই দেখা যায়। যা কার্যত একটি বদ অভ্যেস।এই অভ্যেস যতটা সম্ভব কাটিয়ে তোলাটাই প্রয়োজন।
সকালের ব্রেকফাস্ট না করা গবেষণায় প্রমাণিত যে সকালের দিকের খাবার আমাদজের শরীররকে অনেকটাই শক্তি জোগাতে সামর্থ্য দেয়।তাই সকালের খাবারে যারা গুরুত্ব দেন না তাদের ক্ষেত্রে অনেক সময় দৈন্দন্দিন কাজের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় শক্তির অবাব হয় দাড়ায়।তাই বাইরে বেরোনোর কাজে ব্রেকফাস্ট জরুরী।
কফি-নির্ভর হয়ে পড়া ঘুম থেকে উঠে কফির প্রতি নির্ভরতা কমানোটা বাঞ্ছনীয়।সকালের আড়ষ্ঠতা কাটাতে কফি ভাল তবে এরওপর কখনই নির্ভরশীল হওয়া চলবে না। প্রয়োজন হলে একটু শারিরীক কসরৎ করে নিয়ে চনমনে হওয়া যেতে পারে।
শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত নেওয়া ঘুম থেকে উঠে কী করবেন সে সিদ্ধান্ত কোনোভাবেই সকালে নেবেন না। এতে করে আপনার সময় ও শক্তি দুই-ই অপচয় হবে। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগেই সকালের কাজের হিসেব ভাগ করে নেওয়াটা জরুরী।
নেতিবাচক চিন্তা না করা সকালে উঠে নেতিবাচক চিন্তাধারা মেজাজ নষ্ট করে। যার প্রভাব পনে পুরো কাজের ওপর। তাই যতটা সম্ভব নেতিবাচক বিষয়গুলিকে এড়িয়ে যাওয়াটাই বাঞ্ছনীয়।

এই খবর শেয়ার করুন
  • Share on Google+